search
প্রবেশ
নির্বিক এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করে উত্তর জেনে নিতে পারবেন এবং পাশাপাশি অন্য কারো প্রশ্নের উত্তর জানা থাকলে তাদের উত্তর দিয়ে সহযোগিতা করতে পারবেন।প্রশ্ন উত্তর করতে এখনই নিবন্ধন করুন।
72 বার প্রদর্শিত
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে

1 উত্তর

0 টি ভোট
কালিজিরাকে বলা হয় সর্ব রোগের মহৌষধ। এটাকে খাবার না বলে পথ্য বলাই ভালো। জ্বর, কফ, শরীরের ব্যথা দূর করার জন্য কালিজিরা উপকারিতার শেষ নাই। কালিজিরা মেধার বিকাশে এটি দারুণ কাজ করে। কালিজিরা নিজেই একটি অ্যান্টিবায়োটিক বা অ্যান্টিসেপটিক।

দাঁতে ব্যথা হলে কুসুম গরম পানিতে কালিজিরা দিয়ে কুলি করলে ব্যথা কমে; জিহবা, তালু, দাঁতের মাড়ির জীবাণু মরে। তবে পরিমাণের অতিরিক্ত কালিজিরা খেলে বদহজম হতে পারে।
কালিজিরা কৃমি দূর করার জন্য কাজ করে। তারুণ্য ধরে রাখে দীর্ঘকাল। কাজ করার শক্তিকে বাড়িয়ে দেয় দ্বিগুণ।
দেহের কাটা-ছেঁড়া শুকানোর জন্যও কাজ করে। তাই প্রতিদিন অল্প করে কালিজিরা ভাত-রুটির সঙ্গে বা কাঁচা খেতে পারেন। এতে রয়েছে ক্ষুধা বাড়ানোর উপাদান।
পেটের যাবতীয় রোগজীবাণু ও গ্যাস দূর করে ক্ষুধা বাড়ায়। যারা মোটা হতে চান, তাদের জন্য কালিজিরা উপযুক্ত পথ্য।
যাদের শরীরে পানি জমে হাত-পা ফুলে যাওয়ার সমস্যা রয়েছে, তাদের পানি জমতে বাধা দেয় কালিজিরা।
সন্তান প্রসবের পর কাঁচা কালিজিরা পিষে খেলে শিশু দুধ খেতে পাবে বেশি পরিমাণে।
কালিজিরায় রয়েছে অ্যান্টিমাইক্রোরিয়াল এজেন্ট, অর্থাৎ শরীরের রোগজীবাণু ধ্বংসকারী উপাদান। এ উপাদানের জন্য শরীরে সহজে ঘা, ফোড়া, সংক্রামক রোগ (ছোঁয়াচে রোগ) হয় না।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর 38 বার প্রদর্শিত
1 উত্তর 103 বার প্রদর্শিত
103 বার প্রদর্শিত 04 জুন 2018 "রূপচর্চা" বিভাগে জিজ্ঞাসা builderbd
1 উত্তর 33 বার প্রদর্শিত
33 বার প্রদর্শিত 02 জুন 2018 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা builderbd
1 উত্তর 95 বার প্রদর্শিত
95 বার প্রদর্শিত 21 ফেব্রুয়ারি 2018 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা Md tushar