search
প্রবেশ
নির্বিক এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করে উত্তর জেনে নিতে পারবেন এবং পাশাপাশি অন্য কারো প্রশ্নের উত্তর জানা থাকলে তাদের উত্তর দিয়ে সহযোগিতা করতে পারবেন।প্রশ্ন উত্তর করতে এখনই নিবন্ধন করুন।
50 বার প্রদর্শিত
কোন ব্র্যান্ডের এসি ভাল হবে গরমের জন্য?
"ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স" বিভাগে

1 উত্তর

0 টি ভোট
প্রাথমিক ধারণা:- প্রথমতো বাড়ির ধরন বুঝে এসি কিনতে হবে। যে রুমে এসি লাগাবেন তাতে যদি জানালা থাকে তবে পছন্দ অনুসারে ভালো ব্র্যান্ড দেখে ‘উইন্ডো এসি’ কিনে নিতে পারেন। ঘরের আকার যদি ছোট হয় তবে এই ধরনের এসি কেনা যেতে পারে। এক্ষেত্রে দামটাও তুলনামূলক কম। তবে ঘরের আকার যদি বড় হয় কিংবা ঘরে যদি কোনো জানালা না থাকে তবে ‘স্প্লিট এসি’ কিনতে হবে। মূলত বসার ঘর কিংবা  অফিসের বড় রুমে ব্যবহারের জন্য ‘স্প্লিট এসি’ কেনা হয়।ঘরের আকার সর্বোচ্চ ১৪০ স্কয়ার ফিট পর্যন্ত হলে এক টন ক্ষমতাসম্পন্ন এসি কিনলেই চলবে। তবে ঘরের আকার ১৪০ থেকে ১৯৬ স্কয়ার ফিটের মধ্যে হয় তবে দেড় টন কার্যক্ষমতার এসি কিনতে হবে।যে রুমে এসি লাগাবেন তা যদি টপ ফ্লোরে হয় তবে ঘর আকারে ছোট হলেও তুলনামূলক বেশি ক্ষমতার এসি লাগাতে হবে। কারণ সাধারণত ভবনের উপরের তলায় সূর্যরশ্মির তেজ বেশি থাকে এবং ঘর বেশি গরম থাকে।

দরদাম:- গরমের কথা মাথায় রেখে দেশীয় প্রতিষ্ঠান ‘ওয়ালটন’ বাজারে এনেছে বিভিন্ন মডেলের এয়ার কন্ডিশনার। বিভিন্ন জায়গায় ওয়ালটনের শো রুমে পাওয়া যাবে চারটি ভিন্ন ভিন্ন মডেলের এয়ার কন্ডিশনার। মানভেদে এসব এয়ার কন্ডিশনারগুলোর দাম ৩২ হাজার থেকে ৫৫ হাজার ৭০০ টাকা পর্যন্ত। শর্তসাপেক্ষে ওয়ালটন এসিতে দিচ্ছে ছয় মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি এবং তিন বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি।

বসুন্ধরা সিটির ‘সোর্স ট্রেডিং’য়ে ‘প্যানাসনিক’ ব্র্যান্ডের এক টন ক্ষমতার ইনভার্টার এসি পাওয়া যাবে ৭৫ হাজার টাকায়। দেড় টন ক্ষমতার ইনভার্টার এসি কিনতে হলে গুনতে হবে ১ লাখ টাকা। একই ব্র্যান্ডের ইকোন্যাভি এসির দাম এক থেকে দেড় টনের জন্য ৭৩ হাজার টাকা থেকে ৯৫ হাজার টাকা।

এছাড়া প্যনাসনিক’য়ের এক টন ক্ষমতার এসিতে ইনভার্টার এবং ইকোন্যাভি অপশন একই সঙ্গে পেতে হলে খরচ করতে হবে ৮৫ হাজার টাকা থেকে দেড় লাখ টাকা।

মিরপুর এগারোতে এলজি’র নিজস্ব শো রুমে পাওয়া যাবে বিভিন্ন মডেলের স্প্লিট এয়ার কন্ডিশনার। এক্ষেত্রে এক থেকে দেড় টন ক্ষমতার এলজি এসি গুলোর দাম হতে পারে ৫৫ হাজার থেকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এলজি’র এসিগুলোর দাম কিস্তির মাধ্যমে দেওয়া যাবে। এক্ষেত্রে এসির মূল দামের ৫০ শতাংশ পরিশোধ করে বাকি টাকা সাড়ে তিন শতাংশ সুদ হারে তিন কিস্তিতে পরিশোধ করা যাবে।

এছাড়াও র‌্যাংগস’য়ের এক থেকে দুই টন ক্ষমতার এসি ৫১ হাজার থেকে ৬৪ হাজার টাকায়, ‘ক্যারিয়ার’ ব্র্যান্ডের এসি ৪৫ হাজার থেকে ৯৫ হাজার টাকায় এবং ‘ওয়ারপুল’য়ের দেড় থেকে দুই টনের এসি ৭৪ হাজার টাকা থেকে ৯৫ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে। ‘স্যামস্যাং’য়ের এক টন ক্ষমতার এসি পাওয়া যাবে ৫২ হাজার থেকে ৫৫ হাজার টাকায়।

উইন্ডো এসি’র ক্ষেত্রে জেনারেল’য়ের দেড় টনের এসি পাওয়া যাবে ৫২ থেকে ৫৫ হাজার টাকায়। একই ব্র্যান্ডের দুই টনের উইন্ডো এসি কিনতে হলে গুনতে হবে ৬৫ থেকে ৬৯ হাজার টাকা। ‘ক্যারিয়ার’য়ের উইন্ডো এসি পাওয়া যাবে ৪৫ থেকে ৬০ হাজার টাকার মধ্যে। একই দামের মধ্যে ‘গ্রি’ ব্র্যান্ডের উইন্ডো এসি পাওয়া যাবে।

(সংগৃহীত)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর 32 বার প্রদর্শিত
1 উত্তর 29 বার প্রদর্শিত
29 বার প্রদর্শিত
এসি কেনার আগে কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে?
01 মে "ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স" বিভাগে জিজ্ঞাসা builderbd
1 উত্তর 54 বার প্রদর্শিত
54 বার প্রদর্শিত
এরকম কয়েকটি ভালো ব্র্যান্ডের নাম জানতে চাই।
17 জানুয়ারি "রূপচর্চা" বিভাগে জিজ্ঞাসা Asif Shadat
1 উত্তর 26 বার প্রদর্শিত
26 বার প্রদর্শিত 28 সেপ্টেম্বর 2018 "পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা Ran Ran Ran
2 টি উত্তর 29 বার প্রদর্শিত
...